বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ১১:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
সকল মান-অভিমান ভূলে নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে – জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি-মিলন বাসায় ফিরেছেন প্রিয় নেতা ভাসানচর থানা উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুষ্টিয়া নাগরিক কমিটি গঠন: সভাপতি ডাঃ মুসতানজিদ। সাধা: সম্পাদক ড. সেলিম তোহা। যুগ্ম সাধা: সম্পাদক সামসুল ওয়াসে সন্ত্রাসী মোস্তাকের টার্গেট নিরীহ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা। ঝিকরগাছার গদখালি ফুলের রাজধানীতে করোনাকালীন সময়ে হচ্ছে না ফুল বিক্রি : চলতি বছরে থাকছে না কোন টার্গেট নলছিটিতে পছন্দের ছেলের সঙ্গে বিয়ে না দেওয়ায় স্কুল ছাত্রীর ওরনায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা কুষ্টিয়া কেএনবি এগ্রো দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেট লীগের উদ্বোধন ভেড়ামারা পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র কে নাগরিক সংবর্ধনা। কুষ্টিয়ায় অবৈধ ইটভাটায় র‌্যাবের অভিযান ॥ ১৮ লাখ টাকা জরিমানা
ঘোষণা :
নিউজ আর এস এ আপনাকে স্বাগতম  

কুষ্টিয়ায় জামাইয়ের বাড়িতে শাশুড়ির বিয়ের প্রস্তাব!

নিজস্ব প্রতিনিধি: / ১৭৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৯ মে, ২০২০, ৮:১৬ অপরাহ্ন

জামাইয়ের বাড়ীতে গিয়ে বিয়ের প্রস্তাব করেছেন লাল বানু নামের এক শ্বাশুড়ী। কুষ্টিয়া জেলার ইবি থানাধীন ডাবিরাভিটা গ্রামের এই ঘটনা ঘটেছে। কয়েক বছর ধরে জামাইয়ের বাড়ীতে শ্বাশুড়ীর সাথে দীর্ঘদিন পরকিয়ার চলতে থাকে। অবশেষে আজ শুক্রবার সকাল ৭ টার সময় জামাইয়ের বাড়ীতে গিয়ে বিয়ের প্রস্তাব করেন শ্বাশুড়ী। এই নিয়ে গ্রামে চলছে নানা গুঞ্জন।

তথ্যসূত্রে জানা যায় যে, ৫ বছর আগে চাচি শ্বাশুড়ীর বোনের মেয়ের সাথে একই গ্রামে বিমাল ছেলে মনিরুল ইসলামের সাথে পারিপারিক সূত্রে বিয়ে সম্পন্ন হয়। এরই ধারাবাহিকতায় মেয়ের বাড়ীতে চাচি শ্বাশুড়ীর নিয়মিত যাতায়াত ছিলো । জামাই মনিরুল ইসলামের টাকা প্রয়োজন হলে চাচী শ্বাশুড়ীর কাছে বললেই টাকা পেয়ে যেত ।

চাচী শ্বাশুড়ী লাল বানু জানান, আমার স্বামী আব্দুর রশিদ সে দীর্ঘদিন বিদেশে কর্মরত আছে। আমার স্বামী প্রতি মাসে আমার কাছে টাকা পাঠাত। সে টাকা থেকে আমি মনিরুল ইসলামকে জমি কট হিসেবে রেখে তাকে মৌখিকভাবে টাকা প্রদান করি। তারপরে মনিরুল ইসলাম বিদেশ যাওয়ার জন্য আমার কাছে ৩লক্ষ টাকা কর্জ হিসেবে নেয়। যা এখন পর্যন্ত পরিশোধ করেনি। প্রায় ৪ বছর ধরে টাকা আদান প্রদান করাকে কেন্দ্র করে আমাদের দু’জনের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমরা একেঅপরকে ভালবাসি। আমরা ভেদামারা এলাকার এক কাজী দিয়ে বিয়েও করেছি। তবে এই বিয়েতে কোন স্বাক্ষী বা মওলনাকে দেখতে পায়নি। আমরা এক বিছানায় রাত কাটিয়েছি। আজ পর্যন্ত আমি তাকে ৮ থেকে ৯ লক্ষ টাকা দিয়েছি সেও আমাকে দিয়েছে তবে কত টাকা দিয়েছে তা জানি না।
চাচী শ্বাশুড়ী লাল বানু আরও জানান আমাদের এই সম্পর্ক আমার স্বামী ও গ্রামের লোকজন জানা জানি হলে আমাকে তালাক ও বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। আমি কোন কুলকিনারা না পেয়ে মনিরুল ইসলামের বাড়ীতে হাজির হই। বর্তমানে তিনি কোন টাকা পয়সা দাবী করছেন না বরং তাকে ও তার মেয়ে নিয়ে ঘর সংসার করার কথা বলে থাকে।

এ বিষয়ে মনিরুল ইসলামকে তার বাড়ীতে পাওয়া যায়নি। আমাদের সংবাদকর্মীরা তার যোগাযোগের চেষ্টা করলে তা ব্যর্থ হয়েছে।

তবে মনিরুল ইসলামের স্ত্রী জানায় লাল বানু সম্পর্কে আমার আপন চাচী। তিনি সে এ ধরনের কাজ করেছে আমার বিশ্বাস হচ্ছে না। তবে আমার স্বামী মনিরুল ইসলাম তার থেকে জমিতে সার দেবে বলে নগদ টাকা নিয়েছে, তা আবার পরিশোধ করে দিয়েছে। জমির ধান ছিল তা তার বাড়ীতে রেখে আসি। তবে এর আগেও অনেক ছেলেদের সাথে অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এ ধরনের ঘটনা অনেক বার ঘটেছে বিভিন্ন বাড়ীতে।

স্থানীয় লোকজন জানায় মনিরুল ও লাল বানু এর সম্পর্ক অনেক বড় মাপের নেতার কানেও গিয়েছিল। কিন্তু বিষয়টি তারা আপোষ করে দেন। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন মামলা মোকর্দ্দমা হয়নি বলে জানায় দু পক্ষের লোকজন জানান। এটা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা আশংকা করা যাচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

কুষ্টিয়ায় আরো এক পান্না মাষ্টারের সন্ধান..! লম্পট রাজুর বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ প্রতিবাদ করায় ছাত্রীকে হুমকি, নিরাপত্তাহীনতা ও বিচার চেয়ে থানায় এজাহার দায়ের সোহেল রানা কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ায় এক লম্পটের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি ও কু-প্রস্তাবের অভিযোগ উঠেছে । ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করেছে ওই লম্পট। জানা যায়, কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার গোয়ালগ্রাম মধুগাড়ী এলাকার আরজ উল্লাহ’র ছেলে রাজু আহাম্মেদ যার বর্তমান ঠিকানা কুষ্টিয়া শহরের কাটাইখানা মোড়ের একটি বেসরকারি নার্সিং ইনস্টিটিউটের কোর্স সমন্বয়কারী। অত্র ইনস্টিটিউটের ২য় বর্ষের এক ছাত্রীর সাথে পরিচয় হয় তার। পরিচয়ের পর একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন ভাবে কু-প্রস্তাব দেয় লম্পট রাজু। কিন্তু ওই ছাত্রী তার কু-প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় রাজু ওই ছাত্রীর ওড়না ধরে টানাটানি, শরীরে বিভিন্ন স্থানে হাত দেওয়া সহ বিভিন্ন ভাবে দীর্ঘদিন ধরে উত্যক্ত করে আসছিল রাজু। বিষয়টি কাউকে জানালে ওই ছাত্রীকে পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় ওই লম্পট। ভীত ওই ছাত্রী জানায়, লম্পট রাজু জোরপূর্বক ভাবে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এব্যাপারে ওই ছাত্রী নিরাপত্তাহীনতা ও বিচারের দাবী করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন।একাধিক সূত্র জানায়, এরকম আরো কয়েকজন শিক্ষার্থীদের ভয়ভীতি দিয়ে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করে লম্পট রাজু। তার ফাঁদে পড়ে অনেকেই সর্বঃস্ব হারিয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে। ওই ছাত্রীর এজাহারের ভিত্তিতে কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি গোলাম মোস্তফার নির্দেশে ওসি তদন্ত অভিযোগকারী ওই ছাত্রীসহ ভুক্তভোগীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরবর্তীতে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা বাদী ও ভুক্তভোগীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে সত্যতা পায়। তিনি জানান, নারী নির্যাতনকারী অপরাধী যেই হোক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অতিদ্রুত অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এক ক্লিকে বিভাগের খবর